সর্বশেষ

Sunday, February 26, 2023

বিদেশী কোম্পানীর আগ্রাসন থেকে বিড়িশিল্প রক্ষার দাবিতে মানববন্ধন

বিদেশী কোম্পানীর আগ্রাসন থেকে বিড়িশিল্প রক্ষার দাবিতে মানববন্ধন


ষ্টাফ রিপোর্টারঃ  উচ্চ এবং মধ্যস্তরে আন্তর্জাতিক সিগারেটের ব্র্যান্ডকে উৎপাদনে সীমাবদ্ধ রেখে নিম্নস্তরের জন্য শুধু দেশী কোম্পানিকে সিগারেট উৎপাদনের সুযোগ দেওয়ার দাবিতে রাজশাহীতে মানববন্ধন হয়েছে। রোববার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে রাজশাহীর জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সামনে এ কর্মসূচি পালিত হয়।

দেশীয় সিগারেট শিল্পে কর্মরত রাজশাহী অঞ্চলের কর্মকর্তা-কর্মচারী এবং তামাকচাষীরা এ কর্মসূচির আয়োজন করে। এসময় তারা বলেন, বর্তমানে বিদেশী কোম্পানীগুলোর একচেটিয়া আগ্রাসনে বিপন্ন হয়ে পড়েছে দেশীয় তামাক চাষীরা। সরকারের পূর্বঘোষিত নিম্নস্তরের সিগারেট কেবলমাত্র দেশীয় কোম্পানির জন্য সংরক্ষণ করতে হবে। তবে তা এখনই সম্ভব না হলে, পূর্বে প্রচলিত অনুশাসন অনুযায়ী নিম্নস্তরের প্রতি শলাকা সিগারেটের দাম বহুজাতিক কোম্পানির দামের তুলনায় ৩-৫ টাকা পার্থক্য করতে হবে। শতবর্ষী তামাক শিল্পের টেকসই উন্নয়নে প্রতিযোগিতা আইনের বাস্তবায়নেরও দাবি জানান তারা।

তারা আরো বলেন, একসময় শুধু বিড়ি-সিগারেটের উৎপাদন শুরু করে দেশের অনেক কোম্পানি এখন বহুজাতিক কোম্পানিতে রূপান্তর হয়েছে। কিন্তু এ শিল্পে নতুন করে বিনিয়োগের কোন নিরাপত্তা নেই। কারণ, আন্তর্জাতিক ব্র্যান্ডই দেশের সিগারেটের চাহিদার ৯১ শতাংশ সরবরাহ করছে। তারা এ দেশের মুনাফা তুলে নিয়ে বাইরে নিয়ে যাচ্ছে।

বক্তারা বলেন, আন্তর্জাতিক কোম্পানিগুলো উচ্চ ও মধ্যস্তরের বেশি দামি সিগারেটগুলো উৎপাদন ও বাজারজাত করলে তাদের সমস্যা নেই। তবে নিম্নস্তরের সিগারেট উৎপাদন ও বাজারজাতের ক্ষমতা শুধু দেশী কোম্পানিকেই দিতে হবে। তাহলে দেশের এই শিল্প বাঁচবে। বক্তারা ২০১৮-১৯ অর্থবছরের বাজেটে তোলা এই প্রস্তাব ২০২৩-২৪ অর্থবছর থেকেই কার্যকর করার দাবি জানান।

মানববন্ধনে সভাপতিত্ব করেন দেশীয় সিগারেট শিল্পে কর্মরত রাজশাহী অঞ্চলের কর্মকর্তা-কর্মচারী সমিতির আহ্বায়ক হেলালী ফারুক সভাপতিত্ব করেন। সদ্য সচিব রেজাউল করিমের সঞ্চালনায় এতে অন্যান্য কর্মকর্তা-কর্মচারী, শ্রমিক এবং চাষিরা বক্তব্য রাখেন।

Thursday, February 16, 2023

ওয়ারেন্টের আসামিদের সঙ্গে গোপন বৈঠকের অভিযোগে ওসির বদলি

ওয়ারেন্টের আসামিদের সঙ্গে গোপন বৈঠকের অভিযোগে ওসির বদলি




রাজশাহী মেট্রোপলিটন পুলিশের (আরএমপি) বোয়ালিয়া মডেল থানার ওসি মাজহারুল ইসলামকে অবশেষে বদলি করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার পুলিশ সদর দপ্তরের এক আদেশে তাকে রংপুরে বদলি করা হয়। এ আদেশের পর তার ব্যাপারে মুখ খুলতে শুরু করেছেন স্থানীয়রা। ওয়ারেন্টভুক্ত আসামিদের সঙ্গে গোপন বৈঠক ও ভাষা সৈনিকপুত্রকে ব্ল্যাকমেইলের চেষ্টার অভিযোগসহ বেরিয়ে আসছে চাঞ্চল্যকর নানা তথ্য।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, গত বছরের ২২ জানুয়ারি আরএমপির বোয়ালিয়া মডেল থানায় যোগদান করেন মাজহারুল ইসলাম। এরপর থেকে চলতি ফেব্রুয়ারি মাস পর্যন্ত বোয়ালিয়া থানা এলাকায় অন্তত ১০টি হত্যাকাণ্ড সংঘটিত হয়। হত্যাকাণ্ডগুলোর মধ্যে মহানগরীর নিউমার্কেট এলাকায় ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী রিয়াজ খুনের ঘটনাটি ছিল চাঞ্চল্যকর। খুন হওয়ার এক ঘণ্টা আগে বোয়ালিয়া থানায় গিয়ে নিরাপত্তা চেয়ে জিডি করেন রিয়াজ। তবে তার সঙ্গে দুর্ব্যবহার করে তাকে থানা থেকে বের করে দেন ওসি মাজহারুল। এর ঘণ্টাখানেক পরই বোয়ালিয়া থানার শিরোইল পুলিশ ফাঁড়ির সামনে তাকে নৃশংসভাবে কুপিয়ে হত্যা করে সন্ত্রাসীরা। আসামিদের গ্রেপ্তার না করে বিষয়টি ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টাও চলে। কিন্তু সামাজিক আন্দোলনের ফলে সেটি সম্ভব হয়নি। অভিযোগ উঠেছে, আদালতের আদেশনা মেনে গ্রেপ্তারি পরোয়ানাভুক্ত আসামিদের সঙ্গে গোপনে মিটিং করতেন মাজহারুল ইসলাম। হয়রানি করতেন নিরীহ মানুষদের। মহানগরীর বিভিন্ন হোটেলে খাবার খেয়ে বিল দিতেন না তিনি। জড়িত ছিলেন চাঁদাবাজির সঙ্গে। মাদক ব্যবসায়ীদের সঙ্গেও ছিল তার সখ্য। অবৈধ টাকায় তিনি বিপুল সম্পদেরও মালিক হয়েছেন।

Wednesday, February 8, 2023

সমাজসেবী শাহীন আকতার রেনীকে জাতীয় সাংবাদিক সংস্থার সম্মাননা ক্রেস্ট প্রদান

সমাজসেবী শাহীন আকতার রেনীকে জাতীয় সাংবাদিক সংস্থার সম্মাননা ক্রেস্ট প্রদান


ষ্টাফ রিপোর্টার : জাতীয় সাংবাদিক সংস্থা রাজশাহী বিভাগীয় শাখা ও জেলা শাখার প্রধান পৃষ্ঠপোষক বিশিষ্ট নারী নেতৃ শাহীন আকতার রেনীর সাথে রাসিক মেয়রের বাস ভবনে আজ বুধবার দুপুর ২ টায় সংস্থার নেতৃবৃন্দ সৌজন্যে সাক্ষাৎ করে সাংগঠনিক মত বিনিময় করেন।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন জাতীয় সাংবাদিক সংস্থা রাজশাহী বিভাগীয় ও জেলা শাখার প্রধান নির্বাচন কমিশনার দৈনিক সোনালী সংবাদ সম্পাদক মোঃ লিয়াকত আলী ও নির্বাচন কমিশনার রাজশাহী সিটি প্রেসক্লাব সভাপতি মোহাম্মদ জুলফিকার, জাতীয় সাংবাদিক সংস্থা কেন্দ্রীয় কমিটির ভাইস চেয়ারম্যান রফিকুল আলম, জেলা শাখার নব নির্বাচিত সভাপতি দৈনিক আমাদের রাজশাহীর সম্পাদক মোঃ আফজাল হোসেন, সাধারণ সম্পাদক বি.টিভি রাজশাহী প্রতিনিধি মোঃ আজিজুল ইসলাম, বিভাগীয় কমিটির যুগ্ম সম্পাদক মাই টিভির ফয়সাল শাহরিয়ার অনতু, সাংগঠনিক সম্পাদক দৈনিক বাংলার সকালের আমিনুল ইসলাম বনি ও মোহনপুর উপজেলা শাখার সভাপতি মোঃ আব্দুল কাদের।

Sunday, January 29, 2023

দেশের ক্রান্তিকালে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে মানুষের পাশে দাঁড়িয়ে বাংলাদেশ পুলিশ সর্বত্রই প্রশংসিত হয়েছেঃ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

দেশের ক্রান্তিকালে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে মানুষের পাশে দাঁড়িয়ে বাংলাদেশ পুলিশ সর্বত্রই প্রশংসিত হয়েছেঃ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা


ষ্টাফ রিপোর্টারঃ জনগণের আস্থা অর্জনে পুলিশ বাহিনীকে কাজ করার আহ্বান জানিয়ে  প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, দেশের স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্ব রক্ষা ও জঙ্গিবাদ মোকাবেলায় সাহসী ভূমিকা রেখেছে পুলিশ।

দেশের ক্রান্তিকালে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে মানুষের পাশে দাঁড়িয়ে বাংলাদেশ পুলিশ সর্বত্রই প্রশংসিত হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। রোববার দুপুরে রাজশাহীর সারদায় বিসিএস সহকারী পুলিশ সুপারদের সমাপনী কুচকাওয়াজ অনুষ্ঠানে অংশ নিয়ে এমন মন্তব্য করেন তিনি।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, যেকোনো দুর্যোগ মোকাবিলায়, সন্ত্রাস দমন বা কোনো কাজ করতে গেলে জনগণের সহায়তা একান্তভাবে দরকার। যেকোনো বিপদে পুলিশকে পাশে পেলে মানুষ যেন আশ্বস্ত হয়, সেজন্য পুলিশকে তার পেশাদারিত্ব ও সহমর্মিতা দিয়ে মানুষের আস্থা অর্জন করবে। পুলিশ বাহিনীকে দক্ষ ও বিজ্ঞানভিত্তিক করে গড়ে তোলার কথা জানিয়ে সরকারপ্রধান স্বাধীনতার সুফল জনগণের কাছে পৌঁছে দিতে পুলিশ সদস্যদের সক্রিয় হওয়ার তাগিদ দেন। পুলিশ বাহিনী যেন জনগণের আস্থা অর্জন করতে পারে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘বাংলাদেশের এই উন্নয়নের অগ্রযাত্রা যেন অব্যাহত থাকে। আমি চাই মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় স্বাধীনতার সুফল বাংলার মানুষের ঘরে ঘরে পৌঁছে দিয়ে এ দেশকে আমরা আরও উন্নত করব এবং সেভাবেই আপনারা আপনাদের যথাযথ দায়িত্ব পালন করবেন। ইনশাল্লাহ বাংলাদেশকে আর কেউ পিছে টানতে পারবে না।’

 ‘আমরা চাই আমাদের দেশ যেন আর কখনো পিছিয়ে না পড়ে। ২০০৮ সালের নির্বাচনে আমরা নির্বাচনী ইশতেহার দিয়েছিলাম রূপকল্প-২০২১ সেটা বাস্তবায়ন করেছি। জাতির পিতার জন্ম শতবার্ষিকী, স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী আমরা উদযাপন করেছি। ঠিক সেই সময় আমরা উন্নয়নশীল দেশের মর্যাদা পেয়েছি। এই ধারাবাহিকতা অব্যাহত রেখে উন্নত-সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়ার জন্য ডেলটা প্ল্যান-২১০০ আমরা প্রণোয়ন করে দিয়ে গেলাম।’

এর আগে একাডেমির প্যারেড গ্রাউন্ডে ৩৮তম বিসিএস পুলিশ ক্যাডারের শিক্ষানবিশ সহকারী পুলিশ সুপারদের প্রশিক্ষণ সমাপনী কুচকাওয়াজ পরিদর্শন করেন সরকারপ্রধানশেখ হাসিনা। পরে প্রশিক্ষণে শ্রেষ্ঠত্ব অর্জনকারী কর্মকর্তাদের মাঝে ট্রফি বিতরণ করেন এবং নবীন পুলিশ কর্মকর্তাদের উদ্দেশে বক্তব্য দেন।অনুষ্ঠানে উপস্থিত রয়েছেন মন্ত্রী, প্রতিমন্ত্রী, সংসদ সদস্য, পুলিশের মহাপরিদর্শকসহ ঊর্ধ্বতন পুলিশ কর্মকর্তারা।

Wednesday, January 25, 2023

৭ বছরে প্রায় ৭ কোটি টাকা দূর্নীতি ও অনিয়মের অভিযোগ কেশরহাট পৌর মেয়র শহিদের বিরুদ্ধে

৭ বছরে প্রায় ৭ কোটি টাকা দূর্নীতি ও অনিয়মের অভিযোগ কেশরহাট পৌর মেয়র শহিদের বিরুদ্ধে

 


কেশরহাট পৌরসভার বর্তমান মেয়র শহিদুজ্জামান তিনি বিগত ৭ বছরে প্রায় ৭ কোটি টাকা দূর্নীতি ও অনিয়ম করে আত্মসাত করেছেন। এডিপির অর্থায়নে কেশরহাট পৌরসভায় প্রতি অর্থ বছরে ৭৮-৮৬ লক্ষ টাকা বরাদ্দ হয়। সে অর্থ দ্বারা পৌরসভার আর্থ সামাজিক উন্নয়নে টেন্ডারের মাধ্যমে ব্যয় হওয়ার কথা থাকলেও মেয়র বিভিন্ন নাম মাত্র কোটেশন দেখিয়ে ইচ্ছেমত বিল ভাউচার বানিয়ে তা পুরো আত্মসাত করেন; যা সম্পূর্ণ আইনের পরিপন্থি। এ নিয়ে স্থানীয় সরকার মন্ত্রালয়, উপ-পরিচালক স্থানীয় সরকার বিভাগ, বিভাগীয় কমিশনার, জেলা প্রশাসককে লিখিত অভিযোগ করা হয়েছে।

রাজশাহী-নওগাঁ মহাসড়ক ঘেঁসে এ অঞ্চলের বিখ্যাত আর্থিক লেনদেন সমৃদ্ধ বাজার কেশরহাট। এখান থেকে প্রতি বছর  ১ কোটি টাকার উপরে হাটের ইজারা মূল্য আাদায়সহ, ভূমি কর, রেজিষ্ট্রি অফিস ও হোল্ডিং ট্যাক্স থেকে বিপুল পরিমাণ অর্থ আয় করলেও সে অর্থের সঠিক ব্যবহার হয়নি। বরং ওই অর্থ দ্বারা কোনো নিয়মের তোয়াক্কা না করে নামে বে-নামে বিভিন্ন বিল ভাউচার ব্যবহার করে মেয়র নিজের দাম্ভিকতা দেখিয়ে ভোগ বিলাস আর বিপুল সম্পদ গড়েছেন। যা দৃশ্যমান ।

কেশরহাট পৌর মেয়রের শহিদুজ্জামানের বিরুদ্ধে সাত কোটি টাকা লোপাটের অভিযোগ তুলেছেন ৫ কাউন্সিলর। আজ বুধবার দুপুরে রাজশাহী সাংবাদিক ইউনিয়ন কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে এ অভিযোগ করেন তাঁরা। এসময় মেয়রের বিরুদ্ধে টাকা লোপাটের মাধ্যমে অট্টলিকা গড়ে তোলাসহ আরও নানা অনিয়মের অভিযোগ তুলে ধরেন কাউন্সিলররা।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন, ৯ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর বাবুল আক্তার, ১ নম্বর ওয়ার্ড  কাউন্সিলর একরামুল, ৮নং নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর আসলাম হোসেন, ৫ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর ছাবের আলী ও ৬ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর আব্দুল হামিদ।

কেশরহাট উন্নয়নে ও রাজস্ব আয় বাড়ানোর জন্য সরকার এনসিডিপি মার্কেট নির্মাণ করেছেন। সেখানে বিভিন্ন ব্যবসায়ীরা ভাড়ার মাধ্যমে ব্যবসা-বাণিজ্য করেন। যার আয় উন্নয়ন খাতে জমা হওয়ার কথা। কিন্তু ওই মার্কেট দীর্ঘদিন যাবৎ মেয়র তার মনোনীত ব্যক্তিকে সাইকেল, মোটরসাইকেল গ্যারেজ ও গোডাউন হিসেবে ভাড়া দিয়ে ব্যাক্তিগত ভাবে অর্থ আয় করেছেন। যার কোনো অর্থ উন্নয়ন খাতে জমা হয় না।

অত্র পৌরসভায় বিএমডিএফ এর প্রায় ৬ কোটি টাকা অর্থায়নে পৌর সুপার মার্কেট নির্মাণ হয়। গত ৭ বৎসর অতিবাহিত হলেও দ্বিতল ভবনের প্রায় শতাধিক ঘর কোন রেজুলেশন ও নিয়ম, নীতি ছাড়া বরাদ্দের মাধ্যমে ৩ কোটি টাকা আত্মসাত করেন। পৌরসভার কোষাগারে কোন টাকা জমা না করে সম্পূর্ণ আত্মসাত করেন।

মেয়র বিগত ২০১৬ সালের নির্বাচনে তার নির্বাচনী হলোফনামায় যে পরিমাণ সম্পদ দেখান, সেখানে গক ২০২১ সালের নির্বাচনের শতগুন সম্পদ বেড়ে টাকার পাহাড় গড়েছেন। তার নিজস্ব ব্যবসা বাণিজ্য, জমি-জমা বা পরিবারের কেউ কোন চাকুরী না করেও নিজ গ্রামে ডুপ্লেক্স দুইটি ভবন নির্মাণ করেছেন। তিনি এবং তার আপন ছোট ভাই রোকনুজ্জামান টিটু, যিনি কেশরহাট পৌরসভার লাইসেন্স পরিদর্শক পদে নামমাত্র কর্ম করে দুই সহদর মিলে দুর্নীতির মাধ্যমে প্রায় ৩ কোটি টাকার প্রাসাদ গড়েছেন। যার বিভিন্ন আসবার পত্রে ও কারুকাজে বিপুল অর্থের প্রাচুর্য লক্ষনীয় ।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যখন বাংলাদেশকে উন্নতির শিখরে নিয়ে যাচ্ছেন, তখন কেশরহাট পৌর মেয়র শহিদুজ্জামান শহিদ বিভিন্ন দুর্নীতি ও অপকর্মের মাধ্যমে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও অর্জনকে চরমভাবে বাধাগ্রস্থ করছেন। আমরা আশা করি এর সঠিক তদন্ত হলে আরো অধিক অপকর্মের চিত্র প্রমাণসহ বেরিয়ে আসবে।