Thursday, August 29, 2019

তারেককে একহাত নিলেন কাদের সিদ্দিকী!


নিউজ ডেস্ক: জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট থেকে বের হয়ে আসা নেতা কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকী এবার তারেকের নেতৃত্ব নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন। তিনি বলেছেন, তারেক রহমানের মতো দুর্নীতিবাজ নেতার রাজনীতি করা রাজনীতিবিদ হিসেবে লজ্জার।
সোমবার (২৬ আগস্ট) জাতীয় প্রেসক্লাবে কৃষক শ্রমিক জনতা লীগ আয়োজিত আলোচনা সভায় বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকী (বীরউত্তম) এ কথা বলেন।
কাদের সিদ্দিকী বলেন, খালেদা জিয়া জাতির একজন অন্যতম নেতা, কিন্তু তারেক রহমান নয়। গত নির্বাচনে ঐক্যফ্রন্ট তথা বিএনপির নেতৃত্ব তারেক রহমানের হাতে চলে যাওয়ায় রাজনীতিতে এক ধরণের বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি হয়েছিল। তারেক রহমানকে নেতা বানানোর জন্য আমি কখনো রাজনীতি করি নাই, জীবনেও করবো না।
এদিকে একই সভায় তিনি কামাল হোসেনের গুণগানও করেছেন। তিনি বলেছেন, আমরা ঐক্যফ্রন্ট থেকে নিজেদের প্রত্যাহার করেছি, কিন্তু ড. কামাল হোসেনের ভালোবাসা থেকে নিজেকে প্রত্যাহার করি নাই। কোনো দিন করবো না। ড. কামাল হোসেন যেভাবে চান, আমিও সেভাবে চাই জাতীয় ঐক্য প্রতিষ্ঠা হোক।
তিনি বলেন, আমরা কোনো মতেই বিএনপির নেতৃত্বে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট গড়তে কাজ করি নাই। আমরা ঐক্যফ্রন্ট করেছিলাম ড. কামাল হোসেনের নেতৃত্বে। কিন্তু যেকোনো ভাবেই হোক নির্বাচনের মনোনয়ন দেওয়ার সময় থেকেই দেখা গেল, জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের মূল নেতৃত্ব বিএনপির হাতে চলে গেছে। বিএনপি যেখানে যাবে সেখানে অধঃপতন নেমে আসবে।
এ সময় বিএনপি নেতাদের সমালোচনা করে কৃষক শ্রমিক জনতা লীগ সভাপতি বলেন, আমি বিএনপি নেতা ফখরুল ইসলাম আলমগীরকে ফোন করেছিলাম। বঙ্গবন্ধুর ওপর স্মরণ সভায় আপনিও আসেন। বললেন, ভাই আমার কালকে তিনটা প্রোগ্রাম, আমি তো আসতে পারবো না। বিএনপি নেতারা শুধু প্রোগ্রামই করে যাবেন কোনো লাভ হবে না।
বিএনপি নেতাদের উদ্দেশ্যে কাদের সিদ্দিকী বলেন, ‘বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে যদি বিএনপির এই রকম বিতর্ক থাকে, বিএনপির মধ্যে যদি এমন দ্বন্দ্ব থাকে তাহলে বিএনপি রাজনীতি করতে পারবে না। তাদের রাজনীতি করা উচিৎও না। যত সমস্যা তারেক রহমানের। তিনি কী এমন নেতা হয়েছেন যে জাতির জনককে অস্বীকার করিয়ে বিএনপিকে টিকিয়ে রাখবেন- আমি বুঝি না। বিএনপি একটি মাত্র দল বাংলাদেশে এ সত্য কথা নয়। বিএনপিকে জিইয়ে রেখেছে আওয়ামী লীগ।
তিনি এও বলেন, তারেক রহমানের বোঝা উচিৎ- তিনি রাজনীতিবিদ নন। তিনি কেবল একজন রাজনীতিবিদের সন্তান মাত্র। ফলে তার রাজনীতিটা শেখা উচিৎ।
অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন গণফোরাম সভাপতি ড. কামাল হোসেন, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল জেএসডি সভাপতি আ স ম আবদুর রব, গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী, সাবেক পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী আবুল হাসান প্রমুখ।

শেয়ার করুন

Author:

Etiam at libero iaculis, mollis justo non, blandit augue. Vestibulum sit amet sodales est, a lacinia ex. Suspendisse vel enim sagittis, volutpat sem eget, condimentum sem.

0 coment rios: