Monday, November 2, 2020

রেমিট্যান্স আয়ে বাংলাদেশ বিশ্বে অষ্টম

 

রেমিট্যান্স আয়ে বাংলাদেশ বিশ্বে অষ্টম

বিশ্বব্যাংকের প্রতিবেদন অনুযায়ী চলতি বছরে র‌েমিট্যান্স আয়ে বাংলাদেশের অবস্থান সারা বিশ্বে অষ্টম। শীর্ষে অবস্থান ভারতের। এরপরেই চীন। 

করোনার বছরে প্রবাসী আয়ে (রেমিট্যান্স) শক্তিশালী অবস্থান ধরে রেখেছে বাংলাদেশ। চলতি ২০২০ সালে রেমিট্যান্স প্রবাহে বিশ্বে বাংলাদেশের অবস্থান অষ্টম।

বিশ্বব্যাংকের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য উঠে এসেছে। শুক্রবার ওয়াশিংটন সদরদফতর থেকে ‘কোভিড-১৯ ক্রাইসিস থ্রু মাইগ্রেশন লেন্স’ শীর্ষক এ প্রতিবেদন প্রকাশ করা হয়।

মূলত প্রাতিষ্ঠানিক তথা ব্যাংকিং চ্যানেলে রেমিট্যান্স বৃদ্ধি পাওয়ায় কোভিডের মধ্যেও রেমিট্যান্স বাড়ছে বলে প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়।

এতে বলা হয়েছে, ২০২০ সালে বাংলাদেশে রেমিট্যান্স আসবে প্রায় ২০ বিলিয়ন বা দুই হাজার কোটি ডলার। বর্তমান বিনিময় হার অনুযায়ী যা ১ লাখ ৭০ হাজার কোটি টাকা এবং জিডিপির ৬ শতাংশের বেশি।

রেমিট্যান্স আয়ে সবার উপরে রয়েছে ভারত (৭৬ বিলিয়ন ডলার)। চীন এ তালিকায় দ্বিতীয় (৬০ বিলিয়ন ডলার) আর তৃতীয়তে আছে মেক্সিকো (৪১ বিলিয়ন ডলার)।

বাংলাদেশের আগে দক্ষিণ এশিয়ার অপর দেশ পাকিস্তানের অবস্থান ষষ্ঠ। বছর শেষে দেশটির রেমিট্যান্সের পরিমাণ হতে পারে ২৪ বিলিয়ন ডলার, বাংলাদেশের চেয়ে চার বিলিয়ন ডলার বেশি।

অর্থনীতিবিদরা বলেছেন, রেমিট্যান্সে প্রণোদনা, নিয়মকানুন সহজ করা ও করোনায় বিশ্বব্যাপী অবৈধ হুন্ডি বন্ধের ফলে বাংলাদেশে রেমিট্যান্স প্রবাহ বাড়ছে।

গত ২০১৯-২০ অর্থবছের ১ হাজার ৮২০ কোটি ডলার সমপরিমাণ ১ লাখ ৫৪ হাজার কোটি টাকার রেমিট্যান্স এসেছে। এটি গত অর্থবছরের একই সময়ের তুলনায় প্রায় ১১ শতাংশ বেশি।

গত মার্চে নিম্মমুখী প্রবণতা থাকলেও এর পর থেকে রেমিট্যান্স বাড়তে থাকে। চলতি অর্থবছরের সেপ্টেম্বর পর্যন্ত দেশে ৬৭১ কোটি ডলারের বেশি রেমিট্যান্স আসে। এটি গত অর্থবছরের একই সময়ের তুলনায় ৪৯ শতাংশ বেশি। রেমিট্যান্সের শক্ত অবস্থানের কারণে বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ নতুন উচ্চতায় পৌঁছেছে।

বিশ্বব্যাংক প্রতিবেদনের প্রক্ষেপণ অনুযায়ী, এ বছর করোনার মধ্যেও দক্ষিণ এশিয়ার দুইটি দেশের রেমিট্যান্স বাড়বে, যার মধ্যে বাংলাদেশের বাড়বে আট শতাংশ।

পরিমাণের দিক থেকে ভারত শীর্ষে থাকলেও এ বছর দেশটির রেমিট্যান্স নয় শতাংশ কমবে। আর সামগ্রিকভাবে দক্ষিণ এশিয়ার রেমিট্যান্স কমবে চার শতাংশ। অবশ্য দক্ষিণ এশিয়ার আরেকটি দেশ পাকিস্তানের নয় শতাংশ বাড়বে।

বিশ্বব্যাংক বলেছে, ২০২০ সালে সামগ্রিকভাবে বিশ্বে রেমিট্যান্স কমবে সাত শতাংশ।

তবে মোট দেশজ উৎপাদনের (জিডিপির) অনুপাতে বাংলাদেশ রেমিট্যান্স আহরণের ক্ষেত্রে দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর মধ্যে চতুর্থ, যা জিডিপির ছয় দশমিক দুই শতাংশ। এক্ষেত্রে প্রথমে রয়েছে নেপাল (২৩ শতাংশ), দ্বিতীয়তে পাকিস্তান (৯ দশমিক ১ শতাংশ) এবং তৃতীয়তে শ্রীলংকা (৮ দশমিক ২ শতাংশ)।


শেয়ার করুন

Author:

Etiam at libero iaculis, mollis justo non, blandit augue. Vestibulum sit amet sodales est, a lacinia ex. Suspendisse vel enim sagittis, volutpat sem eget, condimentum sem.

0 coment rios: