Thursday, July 21, 2022

 রাবির ভর্তি পরীক্ষা সুষ্ঠুভাবে বাস্তবায়নে রাসিক মেয়র লিটনের উদ্যোগে প্রস্ততিমূলক সভা অনুষ্ঠিত

রাবির ভর্তি পরীক্ষা সুষ্ঠুভাবে বাস্তবায়নে রাসিক মেয়র লিটনের উদ্যোগে প্রস্ততিমূলক সভা অনুষ্ঠিত



ষ্টাফ রিপোর্টারঃ রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০২১-২০২২ শিক্ষাবর্ষে ১ম বর্ষ স্নাতক/স্নাতক (সম্মান) শ্রেণিতে ভর্তি পরীক্ষা সুষ্ঠুভাবে বাস্তবায়নের লক্ষ্যে রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের আয়োজনে প্রস্ততিমূলক সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।বুধবার রাত ৮টা থেকে সাড়ে ৯টা পর্যন্ত নগরভবনে সরিৎ দত্ত গুপ্ত সভাকক্ষে এ সভা অনুষ্ঠিত

প্রস্ততিমূলক সভায় সভাপতিত্ব করেন রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের মেয়র ও বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভাপতিমন্ডলীর সদস্য এ.এইচ.এম খায়রুজ্জামান লিটন।

সভায় বক্তব্য দেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য প্রফেসর চৌধুরী মোঃ জাকারিয়া ও উপ-উপাচার্য প্রফেসর মোঃ সুলতান উল ইসলাম টিপু, রাজশাহী শিক্ষা বোর্ডের সাবেক চেয়ারম্যান প্রফেসর তানবিরুল আলম, কবি আরিফুল হক কুমার, রাজশাহী কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ প্রফেসর হবিবুর রহমান, মহানগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা নওশাদ আলী, আরএমপি‘র ট্রাফিক ইনস্পেক্টর আতাউল করিম কোরাইশী, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক জিয়া হাসান আজাদ হিমেল, রাজশাহী চেম্বার অব কমার্সের সভাপতি মাসুদুর রহমান রিংকু, আবাসিক হোটেল মালিক সমিতির সভাপতি খন্দকার হাসান কবির, রেস্তোরা মালিক সমিতির সভাপতি রিয়াজ আহমেদ খান, রাসিকের সচিব মোঃ মশিউর রহমান, রাজশাহী বাস মালিক সমিতির সভাপতি মতিউর রহমান টিটো, রাজশাহী মহানগর মেস মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক ওমর শরীফ রাজিব, রেডার সাধারণ সম্পাদক কাজী মিজানুর রহমান, রাজশাহী মহানগর ইজিবাইক শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি মোঃ রাশেদুজ্জামান, ইজিবাইক মালিক সমিতির সভাপতি শরিফুল ইসলাম প্রমুখ।

সভায় ভর্তিচ্ছুক শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের আবাসন, খাবার, পরিবহন, যানজট নিয়ন্ত্রণ, নিরাপত্তা ব্যবস্থা, ক্যাম্পাসে নিরবিচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহ, স্বাস্থ্যসেবা, পরিচ্ছন্ন কার্যক্রম জোরদারকরণ, ভ্রাম্যমান টয়লেট স্থাপনের বিষয় সহ সার্বিক বিষয়ে আলোচনা ও সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

সভায় রাসিক মেয়র বলেন, রাজশাহী পরিচ্ছন্ন ও শান্তির নগরী হিসেবে সারাদেশে সুনাম রয়েছে। ২৫ জুলাই থেকে ২৭ জুলাই অনুষ্ঠিতব্য রাবির ভর্তি পরীক্ষা উপলক্ষ্যে ভর্তিইচ্ছুক পরীক্ষার্থী, অভিভাবকসহ প্রায় তিন লাখ মানুষের আগমন ঘটবে। সকলে সার্বিক সহযোগিতায় রাবির ভর্তি পরীক্ষা সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করতে চাই। রাজশাহী মহানগরীতে যারা আসবেন, তারা ভালো অভিজ্ঞতা নিয়ে ফিরে যাবেন-এটিই আমরা চাই।

সভা থেকে মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন ভর্তিচ্ছুক শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের নিকট হতে যাতে অন্যায়ভাবে অতিরিক্ত ভাড়া ও খাবার থেকে অর্থ আদায় না করা হয়, সে ব্যাপারে সংশ্লিষ্টদের অনুরোধ জানান। মেয়র আরো বলেন, যানজট নিয়ন্ত্রণে বর্তমানে দুই শিফটে দুই রঙের অটোরিক্সা নগরীতে চলাচল করে। বর্তমানে ভর্তি পরীক্ষা চলাকালে সারাদিন উভয় রঙের অটোরিক্সা চলাচল করতে পারবে।

এসময় রাজশাহী মহানগর মেস মালিক সমিতির সভাপতি এনায়েতুর রহমান বলেন, বিভিন্ন ছাত্রাবাসে প্রায় ৫০ হাজার শিক্ষার্থীর আবাসনের ব্যবস্থা করা সম্ভব হবে। ছাত্রাবাসে ভর্তি”ছু শিক্ষার্থীকে সম্পন্ন ফ্রি রাখা হবে। অভিভাবকরা টিনসেড মেসে ৩০০টাকা এবং পাকা মেসে ৫০০ টাকা দিয়ে থাকতে পারবেন।

আরএমপি‘র ট্রাফিক ইনস্পেক্টর আতাউল করিম কোরাইশী, বলেন, যানজট নিয়ন্ত্রণে ট্রাফিক পুলিশের পক্ষ থেকে সার্বিক প্রস্ততি গ্রহণ করা হয়েছে। সংশ্লিষ্ট সকলকে যানবাহন চলাচলে নির্দেশনা মেনে চলতে হবে।

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য প্রফেসর চৌধুরী মোঃ জাকারিয়া ও উপ-উপাচার্য প্রফেসর মোঃ সুলতান উল ইসলাম টিপু বলেন, ভর্তি পরীক্ষা সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করতে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ সার্বিক প্রস্ততি গ্রহণ করেছে। ভর্তি পরীক্ষা চলাকালীন বিপুল সংখক মানুষের আগমন ঘটবে রাজশাহীতে। বিষয়টিতে মাথায় রেখে সার্বিক দিক সমন্বয়ে রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের গৃহীত উদ্যোগের জন্য অশেষ কৃতজ্ঞতা জানা”িছ। সকলের সহযোগিতায় আমরা সুষ্ঠুভাবে ভর্তি পরীক্ষা কার্যক্রম সম্পন্ন করতে পারবো আশা করি।

উল্লেখ্য, ২৫ জুলাই থেকে ২৭ জুলাই রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের তিনটি ইউনিটে ১ম বর্ষের ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে।

Saturday, July 16, 2022

রাজশাহীতে এক বৃদ্ধাকে গলা কেটে হত্যা

রাজশাহীতে এক বৃদ্ধাকে গলা কেটে হত্যা


ষ্টাফ রিপোর্টারঃ রাজশাহী মহানগরীর উপকণ্ঠ পবার বামনশিকর উত্তরপাড়া এলাকায় গেরেজান বেগম নামের ব্দ্ধৃাকে গলা কেটে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। নিহত গেরেজান বামনশিকর উত্তরপাড়া মৃত ইয়াকুব আলীর স্ত্রী। শুক্রবার দিবাগত রাতের কোন এক সময় বামনশিকর এলাকার নিজবাড়িতে এই হত্যাকাণ্ডের শিকার হন ওই বৃদ্ধা। আজ সকালে নিহতের মরদেহ উদ্ধার করে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠিয়েছে পুলিশ। মতিহার থানার ওসি আনোয়ার আলী তুহিন জানান, বৃদ্ধাকে গলাকেটে হত্যা করা হয়েছে। বৃদ্ধার মরদেহ উদ্ধার করে রামেক হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। এখনও হত্যার কারণ জানা যায়নি। কাউকে আটকও করা সম্ভব হয়নি। তিনি আরো বলেন, এই ঘটনায় মামলা প্রক্রিয়াধীন। আইনগত ব্যবস্থাগ্রহণ করা হবে। এছাড়া ময়নাতদন্ত শেষে নিহতের মরদেহ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হবে।

রাজশাহীতে অধ্যক্ষকে পেটানোর ঘটনায় সংবাদ সম্মেলন

রাজশাহীতে অধ্যক্ষকে পেটানোর ঘটনায় সংবাদ সম্মেলন


ষ্টাফ রিপোর্টারঃ রাজশাহী রাজাবাড়ী কলেজ অধ্যক্ষ সেলিম রেজাকে পেটানোর কথা ভিকটিম ও অভিযুক্ত এমপি ওমর ফারুক চৌধুরী অস্বীকার করলেও এ সংক্রান্ত একটি অডিও প্রকাশ করেছে রাজশাহী জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান আসাদ। আজ দুপুরে মহানগরীর লক্ষ্মীপুর মোড়ে তার কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে আওয়ামী লীগ নেতা আসাদুজ্জামান আসাদ যে অডিও প্রকাশ করেন তাতে আহত শিক্ষকের সাথে অন্য এক ব্যক্তির মার খাওয়ার স্বীকারোক্তিমুলক কথোপোকথন রয়েছে। ওই অডিও ক্লিপে অধ্যক্ষকে বলতে শোনা গেছে কি কারণে এমপি ওমর ফারুক চৌধুরী তাকে কিল ঘুষি মারেন, তা তিনি জানেন না। সংবাদ সম্মেলনে এমপির ওমর ফারুকের বিরুদ্ধে শিক্ষক পেটানো ছাড়াও নানা অনিয়ম, দুর্নীতি জামায়াত তোষন, ৭০% জামায়াত বিএনপির লোকজনকে চাকরী প্রদান, ছাত্র জীবনে ছাত্রদল ও পরবর্তীতে ফ্রিডম পার্টি করা সহ একধিক গুরুত্ব অভিযোগ তুলেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান আসাদ। তিনি সংবাদ সম্মেলনে দাবী করেন তার অভিযোগগুলো সত্য না হলে তাকে যেন আওয়ামী লীগ থেকে বহিস্কার করা হয়। আর সত্য প্রমানিত হলে এমপি ওমর ফারুক চৌধুরীর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার দাবী করেন। সম্প্রতি রাজশাহী বাজাবাড়ী কলেজের অধ্যক্ষ সেলিম রেজাকে পেটানোর অভিযোগ উঠে সাবেক মন্ত্রী ওমর ফারুক চৌধুরী এমপির বিরুদ্ধে। সংবাদটি গণমাধ্যমে প্রকাশ পেলে ব্যাপক সমালোচানার মুখে পড়ে এমপি ওমর ফারুক চৌধুরী। এই বিষয়ে জাতীয় বিশ^বিদ্যালয় থেকে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করে। এরপর গত ১৪ জুলাই এমপি ওমর ফারুক চৌধুরী তার রাজনৈতিক কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে ভিকটিম অধ্যক্ষকে পাশে বসিয়ে তার বিরুদ্ধে উঠা অভিযোগ অস্বীকার করেন। তিনি মিথ্যা সংবাদ প্রচারের জন্য জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান আসাদকে দায়ী করে বলেন, তাকে বির্তকীত করতেই শিক্ষক পেটানো অভিযোগ তুলে সামাজিক ও রাজনৈতিক ভাবে ক্ষতি করতে চায়। সংবাদ সম্মেলনে আহত শিক্ষকও এমপির সুরে কথা বলেন এবং এমপি তাকে আঘাত করেননি বলে জানান। তবে তার শরীরে আঘাতে চিহ্ন কিসের সাংবাদিকরা জানতে চায়লে তিনি জানান, অন্য শিক্ষকদের সাথে হাতাহাতি তিনি আঘাতপ্রাপ্ত হন।

Thursday, July 14, 2022

১০ মাসে স্বামীর হাতে ১৯৭ খুন

১০ মাসে স্বামীর হাতে ১৯৭ খুন

 

১০ মাসে স্বামীর হাতে ১৯৭ খুন

মহিদুল ও রোজিনার মধ্যে প্রায় প্রতিদিনই ঝগড়া হতো। ঘটনার সময় ঝগড়ার এক পর্যায়ে মহিদুল বঁটির হাতল দিয়ে তার স্ত্রীর মাথায় আঘাত করেন। এতে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু ঘটে। ঘটনাটি ঘটে ৫ নভেম্বর, ঝিনাইদহের মহেশপুর উপজেলার চাঁদরতনপুর গ্রামে।

স্ত্রী মিনারাকে হত্যার পর স্বামী আমিনুল ইসলাম নিজেই থানায় ফোন করেন। তিনি বলেন, আমার স্ত্রীকে আমি হত্যা করেছি। আপনারা এসে আমাকে নিয়ে যান। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে আমিনুলকে আটক করে। ঘটনাটি ঘটে ২০ নভেম্বর, টাঙ্গাইলের ঘাটাইলের ভাবনদত্ত পন্ডিত কাছড়া গ্রাম

 শুধু রোজিনা কিংবা মিনারা নয়, চলতি বছরের জানুয়ারি থেকে অক্টোবর পর্যন্ত ১০ মাসে স্বামীর হাতে খুন হয়েছেন ১৯৭ জন নারী। আইন ও সালিশ কেন্দ্রের (আসক) এক পরিসংখ্যানে এ তথ্য জানা যায়।

গত বৃহস্পতিবার আন্তর্জাতিক নারী নির্যাতন প্রতিরোধ দিবস উপলক্ষে গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে এসব তথ্য জানিয়েছে সংস্থাটি।


আসক জানায়, বাংলাদেশে নারী অধিকার পরিস্থিতি বিশ্লেষণ করলে দেখা যায় যে নারীরা এখনো প্রতিনিয়ত পরিবার, সমাজ ও রাষ্ট্রীয় কাঠামোতে নানা ধরনের বৈষম্য, নিপীড়ন এবং শারীরিক, মানসিক ও অর্থনৈতিক নির্যাতনের শিকার।

আসকের পরিসংখ্যান অনুযায়ী, গত ১০ মাসে পারিবারিক সহিংসতার কারণে আত্মহত্যা করেছেন ১২৮ নারী। এছাড়া ধর্ষণের শিকার হয়েছেন এক হাজার ১৭৮ জন নারী। এর মধ্যে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ করা হয়েছে ২২০ জনকে এবং ধর্ষণের পর হত্যা করা হয়েছে ৪৩ জন নারীকে। ধর্ষণচেষ্টার ঘটনা ঘটে ২৭৬টি এবং আত্মহত্যা করেছেন ৮ নারী।

আসক আরও জানায়, বিগত ১০ মাসে যৌন হয়রানির শিকার হয়েছেন ১১৬ নারী, যার মধ্যে আত্মহত্যা করেছেন ১০ জন নারী। যৌতুককে কেন্দ্র করে শারীরিক নির্যাতনের শিকার হয়েছেন ১০১ নারী। নির্যাতন করে হত্যা করা হয়েছে ৬৩ জনকে। অ্যাসিড নিক্ষেপের শিকার হয়েছেন ২০ জন।

বিজ্ঞপ্তিতে আসক জানায়, সহিংসতার এমন চিত্রের বিপরীতে আমরা প্রত্যক্ষ করি খুব কমসংখ্যক ঘটনার ক্ষেত্রে মামলা হচ্ছে, বিচার প্রক্রিয়া সম্পন্ন হয়েছে এবং ন্যায়বিচার পাওয়া গেছে। নারীর প্রতি সহিংসতার এমন চিত্রের মূল কারণ বৈষম্য ও পুরুষতান্ত্রিক মানসিকতা। দেশের নানা ক্ষেত্রে উন্নয়ন ঘটলেও এই মানসিকতা বাংলাদেশের সমাজে এখনও ভয়ানক মাত্রায় রয়ে গেছে। এছাড়াও, বিদ্যমান আইন ও বিচারিক কাঠামো এখনও নারীবান্ধব নয় এবং নারীর জন্য সহজগম্য নয়। এসব কাঠামো নারীর অধিকারের প্রতি সংবেদনশীল না হওয়ায় নারীরা আইনের আশ্রয় নেওয়ার ক্ষেত্রে বাধা পান, নিরুৎসাহিত হন।

নারী নির্যাতন প্রতিরোধ দিবসে নারীর প্রতি সহিংসতা বন্ধে ও ন্যায়বিচার সুনিশ্চিত করতে আসক ‘ভুক্তভোগী ও সাক্ষী সুরক্ষা আইন’ প্রণয়নের দাবি জানায়।

Monday, July 11, 2022

কোরবানির বর্জ্য অপসারণে সার্বিক সহযোগিতা করায় নগরবাসীকে আন্তরিক ধন্যবাদঃ মেয়র লিটন

কোরবানির বর্জ্য অপসারণে সার্বিক সহযোগিতা করায় নগরবাসীকে আন্তরিক ধন্যবাদঃ মেয়র লিটন


 

ষ্টাফ রিপোর্টারঃ নির্ধারিত সময়ের আগেই কোরবানির বর্জ্য অপসারণে আবারো রেকর্ড গড়েছে রাজশাহী সিটি কর্পোরেশন (রাসিক)। গতবারের মতো এবারো দ্রুত সময়ে কোরবানির বর্জ্য অপসারণ করেছে রাসিক। তাইতো ঈদের পরদিনই পরিচ্ছন্ন ও ঝকঝকে তকতকে শহর পেলেন মহানগরবাসী। এদিকে কোরবানির বর্জ্য অপসারণে সার্বিক সহযোগিতা করায় নগরবাসীকে আন্তরিক ধন্যবাদ জানিয়েছেন রাজশাহী সিটি মেয়র এ.এইচ.এম খায়রুজ্জামান লিটন।

রাসিকের পরিচ্ছন্ন বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, পবিত্র ঈদুল আযহার দিন সকাল ১০টা থেকে কোরবানির বর্জ্য অপসারণ কার্যক্রম শুরু করেন সিটি কর্পোরেশনের ১৩৭৮ জন পরিচ্ছন্নকর্মী। বিকেলের মধ্যে ৩০টি ওয়ার্ড থেকে বর্জ্য রাখা হয় সিটি কর্পোরেশনের নির্ধারিত এসটিএস সমূহসহ ৫৮টি স্থানে। সন্ধ্যা ৬টার দিকে নগরীর ঐতিহ্য চত্বর সেকেন্ডারি ট্রান্সফার স্টেশনে বর্জ্য অপসারণ কার্যক্রমের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমন্ডলীর সদস্য ও রাসিক মেয়র এ.এইচ.এম খায়রুজ্জামান লিটন। এরপর থেকে এসটিএস সহ নির্ধারিত স্থানসমূহ থেকে বর্জ্য সিটি কর্পোরেশনের ডাম্পিং ইয়ার্ডে নিয়ে যাওয়া হয়। উদ্বোধনকালে মেয়র জানিয়েছিলেন,‘রাত ১২টার মধ্যে কোরবানির সকল বর্জ্য অপসারণ করা হবে।’ তবে নির্ধারিত সময়ের পূর্বেই ২৮টি ট্রাক ও ট্রাক্টরের মাধ্যমে কোরবানির সকল বর্জ্য অপসারণ করা হয়।

এ ব্যাপারে মেয়র এএইচএ খায়রুজ্জামান লিটন বলেন, মহানগরবাসীর সার্বিক সহযোগিতা ও আমাদের পরিচ্ছন্ন কর্মীদের নিরলস প্রচেষ্টায় দ্রুত সময়ের কোরবানির বর্জ্য অপসারণ করা সম্ভব হয়েছে। এজন্য আমি রাজশাহী মহানগরবাসী এবং পরিচ্ছন্ন বিভাগের সকল কর্মকর্তা-কর্মচারীদের ধন্যবাদ জ্ঞাপন করছি।

মেয়র আরো বলেন, কোরবানির পশু জবেহকরণের জন্য ২১০টি স্থান নির্ধারণ করে দেওয়া হয়েছিল। তবে নির্ধারিত স্থানের বাইরেও বিভিন্ন জায়গায় পশু কোরবানি দিয়েছেন নাগরিকরা। ঈদের দিন বিকেলে নগরীর বিভিন্ন এলাকা ঘুরে পরিস্কার-পরিচ্ছন্ন দেখতে পেয়েছি। কোরবানির স্থানসমূহ পানি দিয়ে পরিষ্কার করা এবং পর্যাপ্ত পরিমানে ব্লিচিং পাউডার ছিটানো হয়েছে।

উল্লেখ্য, দ্রুত সময়ে কোরবানির বর্জ্য অপসারণে ব্যাপক প্রস্তুতি গ্রহণ করেছিল রাজশাহী সিটি কর্পোরেশন। এ ব্যাপারে পরিচ্ছন্ন বিভাগকে সকল নির্দেশনা দেওয়া হয়। কোরবানির বর্জ্য অপসারণ, কোরবানি পশু জবেহকরণ বিষয়ে জনসচেতনতা সৃষ্টিতে পত্রিকা ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বিজ্ঞপ্তি প্রচার, মসজিদে ইমামদের মাধ্যমে মুসল্লিদের অনুরোধ জানানোসহ বিভিন্ন উদ্যোগ গৃহীত হয়। সার্বক্ষণিক মনিটরিংয়ে খোলা হয়েছিল কন্ট্রোল রুম।#